পলল প্রকাশনী

‘বাফেলো সোলজার’ বব মার্লে

Scream
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

উর্বর ধরণির বুকে যে আমি বীজ বপন করেছিলাম, ধরণি তাকে ফিরিয়ে দেয়নি বাতাসের কাছে, আলোর কাছে, অংকুরেই তাকে খুঁটে খেয়েছে বিষ পিঁপড়ের ঝাঁক; কৃষকের এ হাহাকার ধানের খেত হয়ে আছড়ে পড়ে নগরের দেয়ালে। কারণ, সমাজে বিদ্যমান বিষ পিঁপড়েরাও ভালো কোনো কিছুকেই মাথা তুলতে দেয় না; তবুও অমানিশার শেষ হয় ভোরের আগমনে। ১৯৪৫ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি জ্যামাইকার সেইন্ট অ্যান প্রদেশের পাহাড়ঘেরা দরিদ্র অধ্যুষিত গ্রাম নাইন মাইলে ভোরের আগমন ঘটে। পুরো নাম রবার্ট নেসতা বব মার্লে। কিন্তু জ্যামাইকার পাসপোর্ট অফিস নামের কিছু অংশ কেটে দেয়ার পর তিনি হয়ে যান বব মার্লে। তার বাবা ছিলেন শ্বেতাঙ্গ ব্রিটিশ কর্মচারী। আর মা কৃষ্ণাঙ্গ জ্যামাইকান। এ কারণেই ছোটবেলা থেকেই বব মার্লে সাদা-কালো দ্বন্দ্বে ভুগতেন। মজার ব্যাপার হল স্কুলে তার কৃষ্ণাঙ্গ বন্ধুরা তাকে ডাকত ‘সাদা বালক’ বলে। আর শ্বেতাঙ্গ দুনিয়ায় তিনি পরিচিত ছিলেন ‘কালো’ হিসেবে। জ্যামাইকান রেগে, স্পা ইত্যাদি লোকছন্দের ধারার গান দিয়ে তিনি বিশ্বজয় করেন। উন্নত বিশ্ব মানে পশ্চিমাদের কালোদের ওপর শোষণ-নিপীড়নের কথা বলেছেন তিনি পশ্চিমে অবস্থান করেই। লেখক রজার স্টেফেনস, মার্লের কাছের মানুষদের সাক্ষাৎকার নিয়ে লিখেছেন তার নতুন বই ‘সো মাচ্ থিংস টু সে’ স্টেফেনসের মতে, অধিকাংশ গায়কই পণ্য। তারা হচ্ছেন সঙ্গীতশিল্প গিয়ারের চাক। তাই গান, প্রস্তুতকারকদের কাছে এমন কিছু জিনিস যেখানে তারা প্রেস করতে পারে, রেডিওতে গানগুলো চালাতে পারে, উদ্যোক্তারা টিকিট বিক্রির মাধ্যমে চলতে পারে, আর বাচ্চাদের এগিয়ে চলার উপাদান। সুতরাং বেশিরভাগ গায়ক রেকর্ড সংস্থার কাছে আটকা, যেভাবে খাদ্য সংস্থাগুলো একটি হিমায়িত ডিনারে লবণের পরিমাণ নির্ণয় করে। কিন্তু প্রায় প্রতিটি সময়ে একজন বিশেষ শিল্পী এককভাবে উঠে আসেন। এমন কেউ যে মানুষের জন্য কথা বলে। এটা থাকে তার গানে, জীবন গল্পে, বিশ্বদর্শন এবং পথ চলায়। তাকে মানুষ এবং তাদের নেতার একটি সংযোজনের মতো মনে হয়। তার সঙ্গীতে বাণিজ্যিক ইঙ্গিত থাকে না, কারণ এটা এমন মনে হয় তার জনসাধারণের জন্য কথা বলার এবং তাদের অনুভূতি ও তাদের প্রয়োজনগুলো নিয়ে কথা বলার জন্য জনগণের মঞ্চ। তাকে এক ধরনের সাংস্কৃতিক সেনেটর মনে হয়- একজন মানুষ যিনি তার লোকদের প্রতিনিধিত্ব করেন, যারা তাদের ডলার এবং ভালোবাসা দিয়ে তার জন্য ভোট দেয়।
পপ সঙ্গীত সমালোচক জন পারেরল একবার লিখেছেন, ‘বব মার্লে তৃতীয় বিশ্বের ব্যথা এবং প্রতিরোধের কণ্ঠস্বর হয়ে ওঠেছে’। মার্লে বিশ্বজুড়ে জ্যামাইকার একটি ইমেজ ছড়িয়ে দিয়েছেন এবং এখন সবাই তার সেই ঐন্দ্রজালিক দ্বীপের জন্য তাদের হৃদয়ে একটি নরম জায়গার অস্তিত্ব অনুভব করেন। এ সমৃদ্ধ নতুন মৌখিক জীবনী ‘সো মাচ্ থিংস টু সে’ লিখতে গিয়ে রেগ পণ্ডিত রজার স্টেফেনস মার্লির জীবনকে গর্ভ থেকে কবর পর্যন্ত বর্ণনা করেছেন। আর এ কাজে স্ট্রিফেন কয়েক বছর ধরে মার্লে, তার মা, তার স্ত্রী, তার শেষ বান্ধবী, তার কয়েকজন ছেলেমেয়ে, তার সংগীত সঙ্গী বনি ভিলার এবং পিটার তোশ এবং আরও অনেকের কাছ থেকে প্রাপ্ত সাক্ষাৎকারের সাহায্য নিয়েছেন। স্টেফেন কয়েক দশক ধরে মার্লের জীবনে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলোকে নিয়ে কাজ করেছেন এবং তিনি এ মহাকাব্যিক ধ্বনির একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভয়েস।
অনেকের কাছেই মার্লে একটি খ্রিস্টের মতো অংকিত চিত্র: মাত্র তিন বছর বয়স থেকেই মার্লে মানসিক শক্তি দেখিয়েছিলেন, চমকপ্রদ নির্ভুলতা সঙ্গে হাতের রেখা পড়তে পারতেন। তবুও, তরুণ মার্লে উপেক্ষিত ছিলেন। বনি ভিলার বলেন, অনেক রাতেই তার বিছানা ছিল ঠাণ্ডা মাটি এবং তার বালিশ ছিল পাথর। মার্লে ছিলেন সামাজিকভাবে বিচ্ছিন্ন। সাদাদের সমাজ তাকে একটি কালো শিশু হিসেবে চিন্তা করত, আর মিশ্র বর্ণের সন্তানদের সমালোচনাকারী কালোরা তাকে ‘ছোট হলুদ ছেলে’ বলে অভিহিত করত। স্ট্রিফেন বলেন, ববের জন্য তার রঙ সবখানেই একটি বাধায় পরিণত হয়। এসবই তাকে আত্মকেন্দ্রিক করে তোলে এবং নিজের ভেতরের শক্তিকে চিনতে শেখায়। যদিও তার প্রাথমিক শক্তিগুলোর মধ্যে বাদ্যযন্ত্র অন্তর্ভুক্ত ছিল না। মার্লের শৈশব বন্ধু এবং গায়ক ডিগ্রি ওয়েসলির মতে, বব কখনও চমৎকার কণ্ঠস্বরের অধিকারী ছিলেন না। আমার মতে ববের ভয়েস ছিল সব থেকে খারাপ।”
তবুও মার্লে বছরের পর বছর কঠিন কাজের মধ্য দিয়ে তারকা হয়ে ওঠেন এবং যখন তিনি টাকা পেয়েছিলেন তখন তিনি অত্যন্ত উদার হয়ে ওঠেন; এবং একটি একক ব্যক্তি কল্যাণ বিভাগে পরিণত হন। তার সাবেক ব্যবসা পরিচালক কলিন লেস বলেন, কিছু লোকের জন্য ববের ছিল একটি নিয়মিত ব্যবস্থা, তারা প্রতি মাসে টাকা নিতে আসত, আর মানুষ যেন অভুক্ত না থাকে তা নিশ্চিত করার জন্য আমাকে তহবিলের ব্যবস্থা করতে হতো। কেউ কেউ বলেন, মার্লে ৪০০০ মানুষকে পরিপালন করছিলেন; কিন্তু লেস মনে করেন এ সংখ্যা ছিল আরও বেশি।
শেষ দিনগুলোতে মার্লে যুদ্ধ করেন ক্যান্সারের সঙ্গে। একজন ডাক্তার বলেছেন, বব মার্লের মধ্যে ক্যান্সার এতটা বেশি ছিল, তার চেয়ে বেশি ক্যান্সার আছে এমন জীবিত মানুষের সঙ্গে আমার দেখা হয়নি। মার্লের অনেক গার্লফ্রেন্ডের একজন ইস্টের অ্যান্ডারসন আই শট দ্য শেরিফ এর রুট নিয়ে বলেন, এটা তাদের মধ্যকার সম্পর্ক নিয়ে লেখা : এটি জন্মনিয়ন্ত্রণের বিষয়। বব সবসময় আমাকে বংশ বৃদ্ধির কথা এবং বাচ্চার কথা বলত, সে আমাকে জিজ্ঞাসা করত কেন আমি তার সঙ্গে এক মাস থাকার পর এখনও পর্যন্ত গর্ভবতী হচ্ছি না। আমি যখন তাকে পিল সেবনের কথা বললাম এরপরই সে লেখে, ‘এভরি টাইম আই প্লান্ট আ সিড হি সেইড কিল ইট বিফোর ইট গ্রো’ (প্রতিবারই আমি যখন একটি বীজ বপন করি সে বলে বেড়ে ওঠার আগেই এটাকে হত্যা কর)।
বব মার্লে একাধারে গায়ক, গীতিকার ও সঙ্গীত পরিচালক ছিলেন। তিনি প্রায় ৫০০ গান লিখে সুর করেছেন। ১৯৯৯ সালে ‘বব মার্লে অ্যান্ড দ্য ওয়েইলার্স’ অ্যালবামকে ‘বিশ শতকের সেরা অ্যালবাম’ নির্বাচিত করে টাইম ম্যাগাজিন। তার গাওয়া সবচেয়ে জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে অন্যতম হল ‘গেট আপ স্ট্যান্ড আপ’, ‘বাফেলো সোলজার’, ‘ওয়ান লাভ’ ও ‘নো ওম্যান নো ক্রাই’। বিবিসি তার ‘ওয়ান লাভ’ গানটিকে শতাব্দীর সেরা গান নির্বাচিত করেছে।
ব্রিটিশ জনমত জরিপে সর্বকালের সেরা গীতিকারের তালিকায় তিন নম্বরে আছেন বব মার্লে। বব ডিলান ও জন লেননের পরপরই তার অবস্থান। আর রক এন রোল গানের হল অব ফেম তালিকায় তৃতীয় বিশ্ব থেকে জায়গা পাওয়া একমাত্র ব্যক্তি বব মার্লে। ব্রিটিশ মিউজিকের হল অব ফেমেও আছেন তিনি। গ্র্যামিতে পেয়েছেন আজীবন সম্মাননা। ১৯৮১ সালের ১১ মে মহান এ প্রতিবাদী শিল্পী মৃত্যুর পথে ঢুকে পড়েন ইতিহাসের পাতায়।
সূত্র : দি নিউইয়র্ক টাইমস অনলাইন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সমাজ ও রাজনীতি

শিল্প-সাহিত্য

ক্রীড়া

এবার আকাশে ওড়ার পালা

ফুটবলে আশার আলো মেয়েরা। সেই আলোটা দেখাচ্ছে কৃষ্ণা-সানজিদারা।…

ফিচার

সৌদি মরুভূমিতে বাংলাদেশিদের মরুদ্যান

মরুভূমির দেশ সৌদি আরব। ঊষর মরুর ধূসর বুকেই কিনা গড়ে উঠেছে বাংলাদেশের সবুজের জয়গান! মরুভূমির ধুলাবালির মাঝে গড়ে উঠছে কৃষিখামার।…

বিনোদন

মা হচ্ছেন সুনিধি চৌহান

সোমবার ছিল বলিউড গায়িকা সুনিধি চৌহানের ৩৩তম জন্মদিন। আর এদিনই জানালেন খুশির খবরটি, মা হতে চলেছেন এই গায়িকা। সম্প্রতি সুনিধি…

বাজার ও অর্থনীতি

সঞ্চয়পত্র বিক্রিতে সরকারের রেকর্ড

সরকারের সঞ্চয়পত্র বিক্রি রেকর্ড ছাড়িয়েছে। সদ্য সমাপ্ত ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৫২ হাজার ৩২৭ কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র বিক্রি করেছে সরকার, যা এ…

রাজধানী

বইয়ের জগৎ

An error occured during creating the thumbnail.

রাতের প্রতিপক্ষ একটি বাতি

অনাত্মীয় সুতোদোর টানাপোড়েনে তৈরি যে ঘনবদ্ধ কাপড় তা আপনার দেহকে ডেকে রাখবে সত্যি কিন্তু মনের আবেগকে না। অন্যের কাছে আত্মীয়হীন…

ইভেন্ট

An error occured during creating the thumbnail.

মায়ের প্রতি ভালবাসা

আজ ১৪ মে রোববার বিশ্ব মা দিবস। মা দিবস একটি সম্মান প্রদর্শন জনক অনুষ্ঠান যা মায়ের সন্মানে এবং মাতৃত্ব, মাতৃক…