আইসিটি ক্ষেত্রে অপার সম্ভাবনায় বাংলাদেশ

Scream
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বর্তমান তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর এই বিশ্বায়নের যুগে প্রযুক্তির ব্যবহার না জানা মূর্খতার সামিল। কারণ প্রযুক্তির ব্যবহার না জানার কারণে আপনি প্রতিটি ক্ষেত্রেই পিছিয়ে থাকবেন। আজ থেকে এক যুগেরও বেশী আগের কথা, যখন কম্পিউটারে “পাওয়ার পয়েন্টে’র” মাধ্যমে বিভিন্ন প্রেজেন্টেশন তৈরী করতাম এবং তা প্রদর্শন করে খুব আনন্দ পেতাম। তখন ভাবতাম শিক্ষা ক্ষেত্রে যদি এই প্রযুক্তির ব্যবহার হতো তাহলে কতই না ভালো হতো। পাশাপাশি এটাও ভাবতাম যে, বিদ্যুৎ ছাড়া এর ব্যবহার সর্বত্র করা সম্ভব নয়। আর এই বিদ্যুৎ উৎপাদনও নাকি অনেক ব্যয়সাধ্য, তার উপরে সিষ্টেম লস্ নামক ব্যধিতো আছেই। কিন্তু ২০০৯ সালে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে বিদ্যুৎ ও তথ্য-প্রযুক্তি’র ক্ষেত্রে এক বৈপ্লবিক উন্নতি সাধিত হয়েছে। এখন প্রত্যেকটি শিক্ষা

যথাযথ তদারকি ও উৎসাহ যোগানোর অভাবে বর্তমানে এই কাজে কাঙ্খিত ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে না। অপ্রিয় হলেও সত্যি যে, আমরা হুজুগে বাঙ্গালী। যখন কোন একটা বিষয়ে আমাদের পশের কেউ অর্থনৈতিক বা সামাজিকভাবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে, তখন আশপাশের সাবই হুমরি খেয়ে লেগে যায় সেই সফলতা প্রাপ্তির আশায়

প্রতিষ্ঠানেই সরকার কর্তৃক ল্যাপটপ ও মাল্টিমিডিয়া সরবরাহ করার ফলে ডিজিটাল কন্টেন তৈরী করে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালনা করা সহজ হয়েছে। এছাড়া প্রত্যেক শিক্ষককে পর্যায়ক্রমে আইসিটি প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু যথাযথ তদারকি ও উৎসাহ যোগানোর অভাবে বর্তমানে এই কাজে কাঙ্খিত ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে না। অপ্রিয় হলেও সত্যি যে, আমরা হুজুগে বাঙ্গালী। যখন কোন একটা বিষয়ে আমাদের পশের কেউ অর্থনৈতিক বা সামাজিকভাবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে, তখন আশপাশের সাবই হুমরি খেয়ে লেগে যায় সেই সফলতা প্রাপ্তির আশায়। বর্তমানে আমাদের দেশেরে প্রত্যেকটি সমতল খোলা জায়গার দিকে তাকালে দেখা যায় বেশীর ভাগ তরুণ সেখানে ব্যস্ত নিয়ে। যার সুফল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ঠিক-ই পাচ্ছে। এছাড়া যারা খেলাধুলার বয়স পেরিয়ে গেছে বলে মনে করছেন, তাদেরও ক্রিকেট খেলা নিয়ে কৌতুহলের যেন শেষ নেই। অবসর কিংবা কাজের ফাঁকেও দেখে নিচ্ছেন ক্রিকেটের আপডেট। এ যেন তাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য হিসেবে গন্য হয়ে গেছে। জাতির ক্রিকেট নিয়ে এই আগ্রহকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলে, ক্রিকেট বিশ্বের সিংহাসনে আরোহন করতে বাংলাদেকে খুব বেশী দিন অপেক্ষা করতে হবে না। ঠিক তেমনি আমরা যদি আইসিটি বিষয়টিকে সফলতার সহজ সিঁড়ি হিসেবে জাতিকে চিনিয়ে দিতে পারি, তাহলে বাংলাদেশের জনশক্তি অবশ্যই সফটওয়্যার তৈরীতে ম্যাজিক দেখাতে পারবে বলে মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি। এক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারেন শিক্ষক সমাজ। প্রয়োজন শুধু বড় ধরণের পুরস্কার বা তিরস্কারের সঠিক ও যথাযথ প্রয়োগ। দেশের একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবে সেই দিনটির অপেক্ষায় রইলাম।

hannan

লেখক
মো. আব্দুল হান্নান। সিনিয়র সহকারি শিক্ষক (কম্পিউটার)
বি.কে.এম মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও “কম্পিউটার-এর সহজ পাঠ” বইয়ের লেখক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সমাজ ও রাজনীতি

শিল্প-সাহিত্য

ক্রীড়া

এবার আকাশে ওড়ার পালা

ফুটবলে আশার আলো মেয়েরা। সেই আলোটা দেখাচ্ছে কৃষ্ণা-সানজিদারা।…

ফটো গ্যালারি

বাবু বরকতউল্লাহ'র ফটোগ্রাফি

ভিডিও গ্যালারি

ফিচার

সৌদি মরুভূমিতে বাংলাদেশিদের মরুদ্যান

মরুভূমির দেশ সৌদি আরব। ঊষর মরুর ধূসর বুকেই কিনা গড়ে উঠেছে বাংলাদেশের সবুজের জয়গান! মরুভূমির ধুলাবালির মাঝে গড়ে উঠছে কৃষিখামার।…

বিনোদন

বাংলাদেশি মেয়েরা হবে মিস ওয়ার্ল্ড!

এবার বাংলাদেশি মেয়েরা অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে মিস ওয়ার্ড প্রতিযোগিতায়। চলতি বছর ১৮ নভেম্বর চীনে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতার…

বাজার ও অর্থনীতি

সঞ্চয়পত্র বিক্রিতে সরকারের রেকর্ড

সরকারের সঞ্চয়পত্র বিক্রি রেকর্ড ছাড়িয়েছে। সদ্য সমাপ্ত ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৫২ হাজার ৩২৭ কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র বিক্রি করেছে সরকার, যা এ…

রাজধানী

বইয়ের জগৎ

রাতের প্রতিপক্ষ একটি বাতি

অনাত্মীয় সুতোদোর টানাপোড়েনে তৈরি যে ঘনবদ্ধ কাপড় তা আপনার দেহকে ডেকে রাখবে সত্যি কিন্তু মনের আবেগকে না। অন্যের কাছে আত্মীয়হীন…

ইভেন্ট